একটা সস্তা জোক দিয়ে শুরু করা যাক। কারনে পুরো দেশেই চলছে স্বস্তার জয়জয়কার।

এক বিজ্ঞানীর স্ত্রী তাঁকে ফোন করে জিজ্ঞেস করছেন: আজ বৃহস্পতিবার , তবু তোমার ঘরে ফিরতে এতো দেরি হচ্ছে কেন?

বিজ্ঞানী: আমি আমাদের টিমের সাথে একটা experiment নিয়ে একটু ব্যস্ত আছি
স্ত্রী : কি এক্সপেরিমেন্ট করছো?
বিজ্ঞানী: We’ve just added a derivative of C2H5OH(Ethanol) with ambient temperature H2O(water) and aqueous CO2(soda). To cool this mixture added some super low temperature, solidified H2O(ice), now while waiting for some protein(chicken), we are fumigating(smoking) the lab with vapors of nicotine… It’s 4 or 5 round experiment, so I will be late..

এত বিশাল গোলকধাঁধা বিজ্ঞানীর স্ত্রী বুজলেন না। তিনি বললেন, “ঠিক আছে গো তুমি তোমার কাজ করো, আমি তোমাকে ডিসটার্ব করছি না।”


পৃথিবীজুড়ে করোনা ভাইরাসের তান্ডব চলেছে। এখনও তার রেশ যায়নি। আর আমদের দেশে চলছে সার্কাস। কারন আমাদের দেশের পলিটিশিয়ান আর ধর্মীয় বক্তাদের বেশিরভাগই ক্লাউন রাশির জাতক-জাতিকা।

টিকা কিছু এসেছে গবেষকদের অক্লান্ত পরিশ্রমে। অনেক দেশই ইতিমধ্যেই টিকা দেয়া শুরু করেছে। বড় বড় সেলিব্রেটিরা নিজেরা টিকা নিয়ে জনগনকে সেটা জানাচ্ছেন, উতসাহিত করার চেষ্টা করে যাচ্ছেন। সেখানে আমাদের দেশে চলছে সার্কাসের ক্লাউনের মত কথা চালাচালি।

মূল সমস্যা বোধহয় টিকা ভারতীয় একটা ইন্সটিটিউট থেকে আসাতে। বঙ্গদেশী কিছু অতিমাত্রায় বলদ প্রকৃতির লোকজন বলে বেড়াচ্ছে এই টিকার অকার্যকরিতার কথা। খোদ প্রধানমন্ত্রী যেন এই টিকা আগে নেন সেটার দাবি বা রসিকতাও হয়ে গেছে।

এর আগে অবশ্য স্ব-ঘোষিত বিজ্ঞানী বলে গেছেন টিকা নিলে আপনার কোন প্রাইভেসী থাকবে না… এর ভিতরে মাইক্রোচিপ জাতীয় কিছু ভরে দেয়া হচ্ছে (!) আবার এটাও কানে এসেছে টিকা নাকি তুরস্কের ফাইজার নামক এক বালকের বানানো… মাঝে মাঝে মনে হয় এই এত এত বলদ এক দেশে পয়দা হয় কি করে? আর এরা যখন মুখ দিয়ে হাম্বা হাম্বা রব ছাড়ে তখন সামনের ছাগলগুলো তার প্রতিবাদ করে না কেন?

ভারত থেকে উপহার পাওয়া টিকা আসলে কাদের ফর্মূলায় বানানো সেটা না জেনে আহাম্মকের মত মন্তব্য, গালভরা বানি আর হিংসাত্বক থুতু না ছিটালেই মনে হয় দেশের জন্য ভালো।

সোজা কিছু কথা বলি, টিকা আপনার পছন্দ না হলে নেবেন না। ডাক্তারের কাছে যাবার ইচ্ছা না থাকলে ঝাড়-ফুঁক করাবেন তাতে কারো বাপের কিছু যায় আসে না। দেশের জনগন হিসেবে সরকারি টিকা আপনার ফ্রিতে পাওয়ার অধিকার রাখেন। বানী ছাড়লে এটার স্বপক্ষে বানী ছাড়ুন। নাইলে দেশের ভালোর জন্য হলেও চুপ থাকুন।

ভোট দিতে পারেন নাই, এটা একটা সত্যি কথা। ভোট দিয়ে কি … ফেলেছেন গত ৩০ বছরে সেটাও দেখেছি। যতই জনগন জনগন করেন না কেন তারা যদি আসলেই আপনাদের সাথে থাকত বা চাইত তবে সরকার টিকে থাকত না। দেশ একটা ক্রান্তিকাল অতিক্রম করছে। নতুন অনেক কিছুই হচ্ছে যেটা আগে হবে বলে কল্পনা করিনি।

বিএনপি এমন একটা পলিটিক্যাল দল যাদের মেরুদন্ড নাই। তারা যাদের সাথে জোট বাঁধে তারাও খালি চিল্লাইয়া মাঠ গরম করার চেষ্টা করে। দেশে জনগনের নানা সমস্যা আছে সেটা নিয়ে কথা বলতে তাদের দেখা যায় না। শুধু ধান্ধায় থাকে গদিতে বসার। যেন তারা বসলেই গনতন্ত্র ফিরে আসবে। গনতন্ত্র এদেশে ছিলটা কবে? খালি ভোট দিলেই গনতন্ত্র পাওয়া হয়ে যায়?

অহেতুক বিরোধিতা করার জন্য ভালো কাজে বাধা দেয়া দেশের স্বার্থে হলেও বন্ধ রাখুন। চোর আপনাদের দলেও ছিল, এখন আওয়ামীলিগেও আছে। কোন কালেই কোন পলিটিক্যাল দল এদেশে ধোয়া তুলসিপাতা ছিল না। সাধারন জনগন হিসেবে আমরা সেটা যথেষ্ট ভালভাবে জানি। আপনারা কোন গ্রহ থেকে এসে রাজনীতি করেন সেটাই আমরা বুঝি না!

যাদের ঈমান(!) বেশি শক্ত তার টিকা নেবেন না। তারা গিয়া সাইন্স হুজুরের সাথে বসে যান। এই সকল লোক ধর্মরে যেমন ডুবায় তেমনি দেশরেও ডুবায়। এই লোক বোধহয় জানেও না দেশের তরুন প্রজন্ম যারা ভবিষ্যতে দেশ চালাবে তারা একে কতটা আবাল আর মূর্খ ভাবে!

এদেশে জ্বী হুজুর আর তালু চাটার লোকের অভাব নাই, অভাব খালি মুখ ফুটে সত্য কথা বলার মত মাথা গুলোর। তুবুও বলি দেশ আগাচ্ছে। এত চুরি-চামারির মধ্যেও দেশ গত দশ বছরের তুলনায় অনেক এগিয়েছে। আমি সামনে আরো ভবিষ্যতের সম্ভাবনা দেখতে পাচ্ছি। তাই আর কিছু না পারুন, দয়া করে ল্যাং মেরে ফেলে দেয়ার বাঙ্গালী চেষ্টা করবেন না।

আরকেটা উপদেশ, C2H5OH খেয়ে কখনও বক্তৃতা দিতে আসবেন না। সবাই সেই বিজ্ঞানীর ওয়াইফের মত আবাল না। দেশে এখনও কিছু মাথা বেঁচে আছে, সবাইকে তো আর মেরে সাফ করে যেতে পারেননি!

লেখালেখিটা পেশা নয় বরং নেশা হিসেবে নিয়েছি। যা কিছু ভালো লাগে তাই লিখে যাই অনবরত। আমাদের আশে পাশে এত এত রহস্যের জাল ছড়িয়ে আছে, সেসব দেখতে দেখতে এক মানব জীবন কখন কেটে যাবে টেরই পাবো না!

মতামত দিনঃ