কিছু কিছু পথ থাকে একেবারেই বাউন্ডুলে,
তাদের কোনো গন্তব্য থাকে না,
তবুও আশেপাশের টং-দোকানের নামে
দিব্যি লেখা হয়ে যায় তাদের নাম।

উত্তরীয় হাওয়ার মতো কুয়াশার পিছু পিছু
ছুটে চলে কিছু পথ,
বোকা হয় ওরা ভীষণ।

কিছু পথ আবার জানালামুখী,
হয়তো কারো জানালা থেকে শুরু হয়
নয়তো কারো জানালাতে যেয়েই শেষ হয়।

কিছু পথ পুরনো অশ্বথের শাখায় শাখায় নেমে আসা
সন্ধ্যের আঁধারের মতো জমা হয়,
ভীষণ অভিমানী সেসব পথ,
সেসব পথের শেষ সীমায় কখনো আলো থাকে না।

কিছু পথ আছে ল্যাম্পপোস্টের চারপাশেই ঘুরপাক খেতে থাকে,
অপেক্ষা সেসব পথের অন্য নাম,
আজীবন হয়তো বৃষ্টি নামার কাল গুনতে থাকে ওরা।

কিছু পথ আছে বড্ড বেশি ছন্দছাড়া, ছন্নছাড়া,
ডুবন্ত সূর্যের হৃৎপিণ্ড খালি করে
পথের মধ্য থেকে মহাশূন্যতা কুড়িয়ে নিয়ে
ছন্নছাড়া গাংচিলের মতো হারিয়ে যায়,
কোথাও আর ফেরে না কখনো।


কবিঃ নিপা খান, বাংলাদেশের শেষ প্রান্তের বিখ্যাত এক জেলা ঠাকুরগাঁয়ে তার জন্ম। শৈশব থেকেই কবি নন, তবে জীবন তাকে উপহার দিয়েছে অনেক কবিতা। জীবনের প্রয়োজনে প্রিয় স্বদেশ আর শৈশবের টাঙ্গন থেকে দূরে আছেন এই কবি।

নিপা খান এ প্রজন্মের কবি। শব্দের বেড়াজালে বেঁধে নিয়েছেন প্রতিবাদ আর প্রতিশ্রুতির হাতিয়ার গুলোকে। “বুনো মেঘ” “অর্ধেক দেবদারু” তার উল্লেখযোগ্য কাব্যগ্রন্থ।

মতামত দিনঃ